পঞ্চম শ্রেণী বিজ্ঞান ১০ম অধ্যায় আমাদের জীবনে তথ্য

আমাদের জীবনে তথ্য

অনুশীলনীর প্রশ্ন ও সমাধান

১.   সঠিক উত্তরে টিক চি‎হ্ন () দাও।

      ১)   তথ্য সংরক্ষণের জন্য কোনটি ব্যবহার করা হয়?

            ক. টিভি        খ. রেডিও

            গ. সংবাদপত্র        ঘ. সিডি

২)   তথ্য বিনিময়ের জন্য কোন যন্ত্রটি ব্যবহার করা হয়?

            ক. বাস        খ. থার্মোমিটার

            গ. মোবাইল ফোন     ঘ. ঘড়ি

      উত্তর : ১)  ঘ. সিডি; ২) গ. মোবাইল ফোন

২.   সংক্ষিপ্ত উত্তর প্রশ্ন :

প্রশ্ন ॥ ১ ॥ তিনটি তথ্য সংরক্ষণ যন্ত্রের নাম লেখ।

উত্তর : তিনটি তথ্য সংরক্ষণ যন্ত্রের নাম হলো :

(র) পেনড্রাইভ, (রর) ডিভিডি, (ররর) মেমরি কার্ড।

প্রশ্ন ॥ ২ ॥ কোন প্রযুক্তির সাহায্যে তথ্য বিনিময় করা যায়?

উত্তর : তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির সাহায্যে তথ্য বিনিময় করা যায়। এর সাথে সংশ্লিষ্ট যন্ত্রপাতি হলো- কম্পিউটা, মোবাইল ফোন, ইন্টারনেট, ই-মেইল ইত্যাদি।

প্রশ্ন ॥ ৩ ॥ তথ্য কেন গুরুত্বপূর্ণ?

উত্তর : তথ্য গুরুত্বপূর্ণ কারণ এটি আমাদের নতুন কিছু শিখতে ও কোনো ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করে।

প্রশ্ন ॥ ৪ ॥ ইন্টারনেট কী?

উত্তর : ইন্টারনেট হচ্ছে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের কম্পিউটারগুলোকে সংযুক্তকারী বিশাল নেটওয়ার্ক।

প্রশ্ন ॥ ৫ ॥ বাংলাদেশে ব্যবহৃত তিনটি  ুঝবধৎপয বহমরহব” এর নাম লেখ।

উত্তর : বাংলাদেশে ব্যবহৃত তিনটি ুঝবধৎপয বহমরহব” হলো : র. গুগল (এড়ড়মষব)  রর. ইয়াহু (ণধযড়ড়), ররর. পিপীলিকা (চরঢ়রষরশধ)।

৩.   বর্ণনামূলক প্রশ্ন :

প্রশ্ন ॥ ১ ॥ “বাংলাদেশে ঘূর্ণিঝড় আসছে” এই তথ্যটি তুমি টেলিভিশন থেকে পেলে। এখন তুমি কী করবে?

উত্তর : “বাংলাদেশে ঘূর্ণিঝড় আসছে” এই তথ্যটি টেলিভিশন থেকে জানতে পারলে আমি আইসিটি ব্যবহার করে নিচের কাজগুলো করার চেষ্টা করব :

১.   প্রথমেই পরিবার ও প্রতিবেশীর সাথে তথ্রটি বিনিময় করব।

২.   দূরে থাকা পরিচিতজনদের মোবাইল ফোন বা টেলিফোনের মাধ্যমে তথ্যটি জানাব।

৩.   খুদে বার্তা (এসএমএস), ই-মেইল, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন- ফেসবুক বা টুইটার ব্যবহার করে ইন্টারনেটের মাধ্যমেও সবাইকে জানাতে পারি।

৪.   পরিবার ও পরিচিত সবাইকে নিয়ে নিরাপদ জায়গায় বা ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রে যাব।

প্রশ্ন ॥ ২ ॥ কীভাবে আমরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করব তা বর্ণনা কর। 

উত্তর : ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করার পদ্ধতি নিচে বর্ণনা করা হলোÑ

      ১.   ঝবধৎপয ইঞ্জিন যেমন Ñ গুগল (মড়ড়মষব), ইয়াহু (ুধযড়ড়), পিপীলিকা (ঢ়রঢ়রষরশধ) ইত্যাদি ব্যবহার করব।

      ২.   যে বিষয়ের তথ্য অনুসন্ধান করছি সে বিষয় সম্পর্কিত “মূল শব্দটি” ঝবধৎপয ইধৎ” এ লিখে “ঝবধৎপয”  লেখাটিতে অথবা “ঊহঃবৎ শবু” তে চাপ দেব।

      ৩.   সার্চ ইঞ্জিনে ওয়েবসাইটের যে তালিকাটি এসেছে সেখান থেকে ওয়েবসাইট বেছে নিয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করব।

      ৪.   যতবার প্রয়োজন ততবার পূর্বের ধাপগুলো পুনরাবৃত্তি করব। অথবা আরও সুনির্দিষ্ট ‘মূল শব্দ’ নির্বাচন করে প্রয়োজনীয় তথ্যটি অনুসন্ধান করব।

প্রশ্ন ॥ ৩ ॥ কেন তথ্য খুঁজে পেতে, বুঝতে, মূল্যায়ন ও ব্যবহার করতে আমাদের যথাযথ দক্ষতা অর্জন করতে হবে?

উত্তর : তথ্য খুঁজে পেতে, বুঝতে, মূল্যায়ন ও ব্যবহার করতে আমাদের যথাযথ দক্ষতা অর্জন করা জরুরি। বর্তমান সময়ে তথ্যের সবচেয়ে বড় উৎস হলো ইন্টারনেট। তাই তথ্য খুঁজতে আমাদের প্রথমেই ইন্টারনেটের ব্যবহার জানতে হবে। ইন্টারনেটের নানান বিষয় যেমন- সার্চ ইঞ্জিন, সার্চ বার, তথ্য নির্বাচন ইত্যাদি বিষয় সম্পর্কে ধারণা থাকা জরুরি। তা না হলে তথ্য সংগ্রহকারী তথ্য সংগ্রহে ব্যর্থ হবে। আবার তথ্য সংগ্রহকারী যদি সঠিক তথ্য ও তথ্যর গুরুত্ব অনুধাবন করতে না পারেন তবে তথ্য জানার কোনো সুফল পাওয়া যাবে না। জানা তথ্য সবার সাথে বিনিময় করতে হবে। তথ্য বিনিময়ের জন্য বিনিময় মাধ্যম, যেমন- ইন্টারনেট, ই-মেইল, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, রেডিও, টেলিভিশন, মোবাইল ফোন ব্যবহার করার জন্য অভিজ্ঞতার প্রয়োজন। যদি তথ্য সংগ্রহকারী তথ্যের গুরুত্ব মূল্যায়ন করতে না পারেন তবে সে তথ্য ব্যবহার করে তেমন কোনো সুফল পাওয়া যাবে না।

প্রশ্ন ॥ ৪ ॥ তথ্য বিনিময় না করলে কী হতে পারে ব্যাখ্যা কর।

উত্তর :  তথ্য আমাদের নতুন কিছু লিখতে, কোনো ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে, নিরাপদ থাকতে সাহায্য করে। আর তথ্য বিনিময় হলো একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে কোনো তথ্য বন্ধু, পরিবার ও অন্যান্য মানুষের সাথে আদান-প্রদান করা হয়। তথ্য বিনিময় আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তথ্য সঠিকসময়ে যথাযথভাবে বিনিময় না করলে ব্যক্তিগত, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনের উপর ক্ষতিকর প্রভাব পড়তে পারে। তথ্য বিনিময় আমাদের নিরাপদে থাকতে, ভালোভাবে বাঁচতে এবং বিপদ থেকে রক্ষা পেতে সাহায্য করে। এছাড়া তথ্য বিনিময় না হলে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সাম্প্রতিক ঘটনা সম্পর্কে ধারণা রাখা সম্ভব হবে না। সর্বোপরি বলা যায় যে, তথ্য বিনিময়ের মাধ্যমে ক্ষতি কমানো যায়।

      প্রশ্ন ॥ ৫ ॥ তোমার একজন বন্ধু জাপানে থাকে। তুমি তার সাথে তথ্য বিনিময় করতে চাও। কোন কোন উপায়ে তুমি তার সাথে তথ্য বিনিময় করতে পার। এর জন্য তোমার কী কী প্রযুক্তির দরকার হবে? লেখ।

      উত্তর : জাপানে থাকা বন্ধুর সাথে আমি নিম্নলিখিত উপায়ে তথ্য বিনিময় করতে পারি :

১.   টেলিফোন বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে।

২.   চিঠি আদান-প্রদান করে।

৩.   ক্যামেরার মাধ্যমে ছবি বা ভিডিও করে।

৪.   ক্ষুদে বার্তা (এস.এম.এস), ই-মেইল, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে, যেমন- ফেসবুক বা টুইটার ব্যবহার করে।

      তথ্য বিনিময়ের জন্য আমার যেসকল প্রযুক্তি দরকার তা হলো :

১.   টেলিফোন বা মোবাইল ফোন,

২.   কম্পিউটার,

৩.   ইন্টারনেট,

৪.   সার্চ ইঞ্জিন ইত্যাদি।

বহুনির্বাচনি প্রশ্ন ও উত্তর

যোগ্যতাভিত্তিক প্রশ্ন :

১। তথ্য বিনিময়ের জন্য কোন যন্ত্রটি ব্যবহার করাহয়?

ক. বাস   খ. থার্মোমিটার

গ. মোবাইল ফোন     ঘ. ঘড়ি

উত্তরঃমোবাইল ফোন

২। তুমি নিজ বাড়ি থেকে দুরে কোনো বিদ্যালয়ে ভতি হওয়ার জন্য নিচের কোন প্রযুক্তি ব্যবহার করবে.

ক. ইন্টারনেট   খ. টেলিভিশন

গ. রেডিও  ঘ. প্রজেক্টর

উত্তরঃ ইন্টারনেট

৩। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কোনটি?

ক. গুগল  খ. পিপীলিকা

গ. ফেসুবক ঘ. টেলিফোন

উত্তরঃফেসুবক

৪। তথ্য প্রযুক্তি আমাদের লাঘব করেছে

ক. বুদ্ধিগত কাজ খ. কায়িক শ্রম

গ. যাতায়াত ঘ. কৃষিশ্রম

উত্তরঃ কায়িক শ্রম

৫। কয়জনের সাথে তথ্য বিনিময় করতে হবে

ক. দুই জনের সাথে   খ. তিন জনের সাথে

গ. পাচজনের সাথে    ঘ. সকলের সাথে

উত্তরঃ সকলের সাথে

৬। তথ্য আমাদের কীভাবে সাহায্য রে ?

ক. নতুন কিছু শিখতে

খ. পারস্পরিক সম্পক নষ্ট করতে

গ. অসচেতন হতে

ঘ. ঘুমাতে

উত্তরঃ নতুন কিছু শিখতে

৭। কাদের সাথে তথ্য আদান প্রদান করতে হবে?

ক. বুদের  খ. আত্মীয়দের

গ. পরিবারের    ঘ. সবগুলো সঠিক

উত্তরঃ সবগুলো সঠিক

৮। কথাবার্তার মাধ্যমে মনোভাব আদান প্রদান করার প্রক্রিয়াকে কীবলে?

ক. তথ্য বিনিময় খ. যোগাযোগ

গ. আদান প্রদান ঘ. সামাজিকীকরণ

উত্তরঃ তথ্য বিনিময়

৯। ইন্টানেট অর্থ কী?

ক. বিশাল নেটওয়ার্ক  খ. ক্ষুদ্র নেটওয়ার্ক

গ. মাছ ধরার জাল    ঘ. মাঝারি নেটওয়ার্ক

উত্তরঃ বিশাল নেটওয়াক

১০। নিচের কোনটি আইসিটি?

ক. থামোমিটার  খ. ট্রাক্টর

গ. কম্পিউটার   ঘ কলম

উত্তরঃ কম্পিউটার

১১। যান্ত্রিক প্রযুক্তিতে কাচামাল হলো বা শক্তি তথ্য প্রযুক্তিতে কাচামাল কোনটি?

ক. তথ্য   খ. প্রযুক্তি 

গ. বিজ্ঞান ঘ. ধর্ম

উত্তরঃ তথ্য

১২।বর্ত মানে এক ধরনের প্রযুক্তি তথ্য বিনিময়ের মাধ্যম হিসেবে ব্যবত হচ্ছে এইপ্রযুক্তিকে কী বলে?

ক. আইটি খ. আইসিটি

গ. আইএসটি    ঘ. আইটিসি

উত্তরঃ আইসিটি

১৩। বর্তমান যুগকে বলা হয়

ক. প্রাচীন যুগ   খ. মধ্যম যুগ

গ. তথ্য প্রযুক্তিরযুগ   ঘ. আধুনিক যুগ

উত্তরঃ তথ্য প্রযুক্তিরযুগ

১৪। বর্তমান যুগে প্রতি মুর্হুত কীসের উপর নির্ভরশীল ?

ক. কম্পিউটার  খ, টেলিভিশণ

গ. তথ্য প্রযুক্তি  ঘ. চিঠি

উত্তরঃ তথ্য প্রযুক্তি

১৫। ইন্টারনেট ব্যবহার করে আমরা নিচের কোন কাজটি করতে পারি?

ক. ভিডিও কনফারেন্স খ. রেলগাড়ি চালনা

গ. বিমান চালনা ঘ. মোটর গাড়ি চালনা

উত্তরঃ ভিডিও কনফারেন্স

১৬। তথ্য প্রযুক্তি বলতে বোঝায়?

ক. তথ্যসংগ্রহ করা    খ. তথ্যের প্রক্রিয়া করা

গ. তথ্য প্রেরণকরা    ঘ. তথ্য সংগ্রহও তথ্যের প্রক্রিয়া করা

উত্তরঃ তথ্য সংগ্রহও তথ্যের প্রক্রিয়া করা

১৭। আধুনিক পৃথিবীকে কী বলা হয়?

ক. রসায়ন প্রযুক্তির পৃথিবী

খ. জৈব প্রযুক্তির পৃথিবী

গ. তথ্য প্রযুক্তির পৃথিবী

ঘ.  কৃষি প্রযুক্তিরপৃথিবী

উত্তরঃ তথ্য প্রযুক্তির পৃথিবী

১৮।কোনটি তথ্য প্রযুক্তির কাজ?

ক. তথ্যধারণ    খ. তথ্য সংরক্ষন

গ. তথ্য বিশ্লেষণ ঘ. সবগুলোই

উত্তরঃ সবগুলোই

১৯। তথ্য প্রযুক্তিতে তথ্যকে বলা হয়

ক. উৎপাদন    খ. প্রক্রিয়করণ

গ. ওয়েব পেজ  ঘ. কাচামাল

উত্তরঃ কাচামাল

২০। কোনটি তথ্য প্রযুক্তির ক্ষেত্রে নতুন বিপ্লব এনেছে?

ক. রেডিও খ. টেলিভিশন

গ. টেলিফোন   ঘ. ইলেকট্রনিক কম্পিউটার

উত্তরঃ ইলেকট্রনিক কম্পিউটার

২১। তথ্য পাঠানোও গ্রহণ করার সচেতন চমকপ্রদ পদ্ধতি কোনটি?

ক. মোবাইলফোন খ. টেলিফোন

গ. ফ্যাক্স  ঘ. কম্পিউটার নেটওয়ার্ক

উত্তরঃ কম্পিউটার নেটওয়ার্ক

২২। কোনটি তথ্যপ্রযুক্তির কাজ?

ক, তথ্য প্রেরণ করা   খ. তথ্য প্রচার করা

গ. তথ্য ধারণ করা    ঘ. ক ও গ

উত্তরঃ ক ও গ

২৩। অনিকা তার ইউনিভাসিটির ভর্তির বিজ্ঞপ্তি বাসায বসে দেখতে গেল। এক্ষেতে সে কোন মাধ্যমে ব্যবহার করেছে?

ক. পেনড্রাইভ   খ. ইন্টারনেট

গ. মোবাইল ঘ. রেডিও

উত্তরঃ ইন্টারনেট

২৪। যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মানুষ একে অপরের সাথে তথ্য আদান প্রদান করতে পারে তাকে কীবলে?

ক. তথ্য সংগ্রহ  খ, তথ্য বিনিময়

গ. তথ্য সংরক্ষণ ঘ. তথ্য বিপ্লব

উত্তরঃ তথ্য বিনিময়

২৫। ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহের মৌলিক ধাপ কয়টি?

ক. ২টি    খ.৩টি

গ.৪টি ঘ. ৫টি

উত্তরঃ৪টি

২৬। কম্পিউটার এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ কোনটি?

ক. মনিটর খ. মেমরি

গ. গুগল  ঘ. সিপ্ইিউ

উত্তরঃ সিপ্ইিউ

২৭। কম্পিউটারের কোনটি নেই?

ক. স্মৃতি   খ. কাজ করার ক্ষমতা

গ. বৃদ্ধি বিবেচনা ঘ. নির্ভূলতা

উত্তরঃ বৃদ্ধি বিবেচনা

সাধারণ প্রশ্ন

২৮।নিচের কোনটি চড়ৎঃধনষব সবসড়ৎু নয়।

ক. মেমরিকার্ড  খ. পেনড্রাইভ

গ. সিপিইউ ঘ. ডিভিডি

উত্তরঃ সিপিইউ

২৯। বিশ্বজুড়ে কম্পিউটারের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে তথ্য আদান প্রদান করার প্রক্রিয়াকে কী বলে?

ক. ইন্টারনেট   খ. ফ্যাক্স

গ. মোবাইল ঘ. রিমোট কন্ট্রোল

উত্তরঃ ইন্টারনেট

৩০। নিচের কোনটি সার্চ ইঞ্জিন ?

ক. ইয়াহু

খ ইন্টারনেট এক্সপ্লোয়ার

গ. গুগল ক্রোম

ঘ. সবগুলোই

উত্তরঃ ইয়াহু

৩১। নিচের কোনটি সার্চ ইঞ্জিন

ক. মজিলা খ. গুগল ক্রোম

গ. গুগল  ঘ. অপেরমিনি

উত্তরঃগুগল

৩২। কোনটি পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের কম্পিউটারগুলোকে সংযুক্তকারী নেটওয়ার্ক?

ক. মোবাইল    খ. ইন্টারনেট

গ. গুগল  ঘ. ইয়াহু

উত্তরঃ ইন্টারনেট

৩৩। তথ্যপ্রযুিক্তর ক্ষেত্রে বড় পরিবর্তনের মাধ্যম কোনটি?

ক, ঘোড়া  খ. ঢোল

গ. কবুতর ঘ. ইন্টারনেট

উত্তরঃ ইন্টারনেট

৩৪। ইন্টারনেট ব্যবহারের মাধ্যম কয়টি?

ক. ২টি    খ. ৩টি

গ. ৪টি    ঘ, ৫টি

উত্তরঃ২টি

৩৫। তুমি ইন্টারনেটের মাধ্যমে থত্য অনুসান করতেপার। এ জন্য কোন ব্রাউজিং সফটওয়্যারটি তুমি ব্যবহার করবে?

ক. ফায়ারফক্স   খ. গুগল

গ. মাইক্রোসফট ঘ. ইন্টারনেট

উত্তরঃ ফায়ারফক্স

৩৬। নিরা ইন্টারনেটের সাহায্য ছবি ডাউনলোড করে। সে নিচের কোনটি ব্যবহার করে?

ক. বাষ্পীয় ইঞ্জিন খ. পেট্রোল ইঞ্জিন

গ. ডিজেল ইঞ্জিন ঘ. সার্চ ইঞ্জিন

উত্তরঃ সার্চ ইঞ্জিন

৩৭। ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার কী?

ক. ইনপুট ডিভাইস    খ. আউটপুট ডিভাইস

গ. হার্ডওয়্যার    ঘ. ব্রাউজিং সফটওয়্যার

উত্তরঃ ব্রাউজিং সফটওয়্যার

৩৮। ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহের প্রথম কাজ কোনটি?

ক. তথ্য সংরক্ষণ      খ. তথ্য অনুসান

গ. তথ্য পাচার   ঘ. তথ্য ব্যবহার

উত্তরঃ তথ্য সংরক্ষণ

৩৯। কোনটি সবচেয়ে আধুনিক যোগাযোগ প্রযুক্তি?  

ক. পোস্টাল ডাক     খ. ইন্টারনেট

গ. টেলিফোন   ঘ. ফ্যাক্স

উত্তরঃ ইন্টারনেট

৪০। ছাপাখানার উদ্ভাবনের ফলে কোন প্রযুক্তির অগ্রগতি সাধিত হয়েছিল?

      ক. যোগাযোগ প্রযুক্তি  খ. শিক্ষা প্রযুক্তি

      গ. তথ্য প্রযুক্তি  ঘ. চিকিৎসা প্রযুক্তি

উত্তরঃ শিক্ষা প্রযুক্তি

৪১। কানটির আবিষ্কার মানুষকে মুখস্ত করায় শ্রম থেকে অনেকটা মুক্তি দিয়েছে?

      ক. লিপি   খ. কাগজ

      গ. ক¤িক্সউটার ঘ. টেপ রেকর্ডার

উত্তরঃ ক¤িক্সউটার

৪২। তথ্য জানার সাথে সাথে আর কী করতে হয়?

      ক. গোপন করতে হয়  খ. মুছে ফেলতে হয়

      গ. সংরক্ষণ করতে হয় ঘ. যোগাযোগ করতে হয়

উত্তরঃ সংরক্ষণ করতে হয়

৪৩। যেকোনো পরিস্থিতি সম্পর্কে সংগৃহীত খবরকে কী বলে?

      ক. তথ্য   খ. উপাত্ত

      গ. সংবাদ  ঘ. সংকেত

উত্তরঃ. তথ্য

৪৪। তুমি গুগল সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে তথ্য খুঁজতে চাও।

তুমি ধফফৎবংং নড়ী-এ কী লিখবে?

      ক. িিমিড়ড়মষবপড়স

      খ. িিমিড়ড়মষব.পড়স

      গ. িি.িমড়ড়মষবপড়স

      ঘ. িি.িমড়ড়মষব.পড়স

উত্তরঃ িি.িমড়ড়মষবপড়স

৪৫। কোনটির সাহায্যে ইন্টারনেট হতে প্রাপ্ত তথ্য সংরক্ষণ করা যায়?

      ক. সিপিইউ খ. মনিটর

      গ. পেনড্রাইভ   ঘ. মাউস

উত্তরঃপেনড্রাইভ

৪৬। গুগল কী?

      ক. সার্চ ইঞ্জিন   খ. ব্রাউজিং সফটওয়্যার

      গ. সিস্টেম সফটওয়্যার ঘ. হার্ডওয়্যার

উত্তরঃ ব্রাউজিং সফটওয়্যার

৪৭। বিশ্বজুড়ে লক্ষ লক্ষ ক¤িক্সউটারে তথ্য আদান-প্রদানের প্রক্রিয়াটির নাম কী?

      ক. ইন্টারনেট        খ. গুগল 

      গ. ওয়েবসাইট   ঘ. ওয়েবপেজ

উত্তরঃ ইন্টারনেট

৪৮। নিচের কোনটি ব্রাউজিং সফটওয়্যার?     

      ক. গুগল  খ. বিং

      গ. মজিলা ফায়ারফক্স  ঘ. ইয়াহু

সবচেয়ে আধুনিক প্রযুক্তি হলো

      ক. কৃষি প্রযুক্তি  খ. যাতায়াত প্রযুক্তি   

      গ. তথ্য প্রযুক্তি       ঘ. গৃহনির্মাণ প্রযুক্তি

উত্তরঃ তথ্য প্রযুক্তি

সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন ॥ ১ ॥ তথ্য প্রযুক্তি কী?

উত্তর : তথ্যকে বিভিন্ন প্রযুক্তির সাহায্যে ব্যবহার করার ক্ষমতাকে তথ্য প্রযুক্তি বলে।

প্রশ্ন ॥ ২ ॥ সবচেয়ে আধুনিক প্রযুক্তি কী?

উত্তর : সবচেয়ে আধুনিক প্রযুক্তি হলো ইলেকট্রনিক কম্পিউটার।

প্রশ্ন ॥ ৩ ॥ তথ্য বিনিময় কী?

উত্তর : তথ্য বিনিময় হলো একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে কোনো তথ্য বন্ধু-পরিবার এবং অন্যান্য মানুষের সাথে আদান-প্রদান করা হয়।

প্রশ্ন ॥ ৪ ॥ বর্তমানে কোন যন্ত্রে ইন্টারনেট ব্যবহার করা যায়?

উত্তর : বর্তমানে কম্পিউটার, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করা যায়।

প্রশ্ন ॥ ৫ ॥ পিপীলিকা কী?

উত্তর : পিপীলিকা একটি সার্চ ইঞ্জিন।

প্রশ্ন ॥ ৬ ॥ সার্চ ইঞ্জিন কী?

উত্তর : সার্চ ইঞ্জিন হলো কম্পিউটারের একটি অ্যাপ্লিকেশন, যার সাহায্যে ইন্টারনেট থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য দ্রুত খুঁজে বের করা যায়।

প্রশ্ন ॥ ৭ ॥ তথ্য বিনিময়ের উপকারিতা কী?

উত্তর : তথ্য বিনিময় আমাদেরকে নিরাপদ থাকতে, ভালোভাবে বাঁচতে ও বিপদ থেকে রক্ষা পেতে সাহায্য করে।

প্রশ্ন ॥ ৮ ॥ বর্তমানে কোন প্রযুক্তি তথ্য বিনিময়ের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে?

উত্তর : বর্তমানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি)। তথ্য বিনিময়ের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

প্রশ্ন ॥ ৯ ॥ ফেসবুক কী?

উত্তর : ফেসবুক হলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।

প্রশ্ন ॥ ১০ ॥ ঝবধৎপয বার কোথায় থাকে?

উত্তর : ঝবধৎপয বার সার্চ ইঞ্জিনে থাকে।

প্রশ্ন ॥ ১১ ॥ এসএমএস কী?

উত্তর : এসএমএস হলো খুদে বার্তা।

কাঠামোবদ্ধ প্রশ্ন ও উত্তর

যোগ্যতাভিত্তিক প্রশ্ন :

প্রশ্ন ॥ ১ ॥ একজন শিক্ষার্থী হিসেবে তুমি কীভাবে শিক্ষায় ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পার? তা ৫টি বাক্যে লেখ।

উত্তর : আমি বিভিন্নভাবে শিক্ষায় ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারি। যেমনÑ

১.   পাঠ্যবইয়ের পরিবর্তে ই-বুক ব্যবহার করতে পারি।

২.   ঘরে বসেই পৃথিবীর যেকোনো দেশের খ্যাতনামা লাইব্রেরির বই পড়তে পারি।

৩.   শিক্ষাবিষয়ক বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে পারি।

৪.   শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভর্তি ফরম পূরণ করতে পারি।

৫.   ইন্টারনেটের মাধ্যমে ক্লাসে অংশগ্রহণ করতে পারি।

প্রশ্ন ॥ ২ ॥ আমাদের জীবনে তথ্য প্রযুক্তির পাঁচটি ব্যবহার লেখ।

উত্তর : আমাদের জীবনের বিভিন্ন কাজে তথ্যের আদান-প্রদান করতে হয়। নিচে তথ্য প্রযুক্তির পাঁচটি ব্যবহার উল্লেখ করা হলো:

১. আবহাওয়ার পূর্বাভাস পেতে আমরা তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগাই। এর সাহায্যে আমরা একটি অঞ্চলের বায়ুম-লের তাপ, চাপ, উষ্ণতা, আর্দ্রতা, বৃষ্টিপাত, বায়ুপ্রবাহ ইত্যাদির অবস্থা জানতে পারি।

২. তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে আমরা চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিভিন্ন রোগের লক্ষণ, ওষুধের ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া ইত্যাদি জানতে পারি।

৩. আমাদের পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়ন ও ফলাফল প্রকাশে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহৃত হয়।

৪.   ছবি আঁকতে, ডিজাইন করতে, তথ্য সংরক্ষণ করে রাখতে তথ্য প্রযুক্তি কাজে লাগে।

৫.   বৈজ্ঞানিক গবেষণায় বিভিন্ন তথ্য বিশ্লেষণ, সিদ্ধান্ত গ্রহণ, যন্ত্রপাতি নিয়ন্ত্রণ ইত্যাদি কাজে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহৃত হয়।

প্রশ্ন ॥ ৩ ॥ তথ্য প্রযুক্তি বলতে কী বুঝ? শিক্ষাক্ষেত্রে তথ্য প্রযুক্তি কীভাবে কাজে লাগে তা তিনটি বাক্যে লেখ।

উত্তর : বিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি উদ্ভাবিত যে নতুন প্রযুক্তির উদ্ভাবন ও বিকাশ সম্পর্কে ধারণা পেয়েছি তাকে তথ্য প্রযুক্তি বলে।

     শিক্ষাক্ষেত্রে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার :

i.    পরীক্ষার ফরম পূরণ করতে তথ্য প্রযুক্তি কাজে লাগে।

ii.    তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে পরীক্ষার রেজাল্ট পেতে পারি।

iii.   শিক্ষাক্ষেত্রে বিজ্ঞান চর্চা ও গবেষণায় তথ্যপ্রযুক্তির ভূমিকা অনস্বীকার্য।

প্রশ্ন ॥ ৪ ॥ ইন্টারনেট কী কী কাজে লাগে দুইটি বাক্যে লেখ। তথ্য সংরক্ষণের তিনটি উপায় লেখ।

উত্তর : ইন্টারনেট যেসব কাজে লাগে তা দুইটি বাক্যে লেখা হলো : 

১.   ইন্টারনেটের মাধ্যমে  যেকোনো তথ্য সহজেই সংগ্রহ করা যায়।

২.   রসধমব, ারফবড়ং, ঝযড়ঢ়ঢ়রহম বা অন্য ঙঢ়ঃরড়হ ঝবষবপঃ  করে তথ্য সম্পর্কিত ছবি, ভিডিও বা চৎড়ফঁপঃ কেনা সম্পর্কে তথ্য নেওয়া যায়।

     তথ্য সংরক্ষণের তিনটি উপায় নিম্নরূপ :

১.   ইন্টারনেটে তথ্যটি অনুসন্ধানের পর প্রাপ্ত তথ্যটি আমরা খাতায় লিখে, ছবি তুলে সংরক্ষণ করতে পারি।

২.   বর্তমানে তথ্য সংরক্ষণের জন্য বিভিন্ন তথ্য সংরক্ষণ প্রযুক্তি যেমন : পেনড্রাইভ, সিডি, ডিভিডি, মেমরিকার্ড ইত্যাদি ব্যবহার করি।

৩.   ইন্টারনেটে তথ্যটি অনুসন্ধানের পর ভিডিও রেকর্ড করে তথ্য সংরক্ষণ করতে পারি।

প্রশ্ন ॥ ৫ ॥ কম্পিউটারের বিভিন্ন অংশের নাম লেখ। ইন্টারনেটের তিনটি ব্যবহার লেখ।

উত্তর : কম্পিউটারের বিভিন্ন অংশের নাম নিম্নরূপ :

      ১. সিপিইউ; ২. মনিটর; ৩. স্পিকার; ৪. প্রিন্টার; ৫. মাউস; ৬. কি-বোর্ড।

     ইন্টারনেটের তিনটি ব্যবহার :

১.   ইন্টারনেটের মাধ্যমে বই, খবরের কাগজ, অথবা  যেকোনো তথ্য সংগ্রহ করা যায়।

২.  ইন্টারনেটের মাধ্যমে বহিঃবিশ্বের সাথে তথ্য বিনিময় করা যায়।

৩.   ইন্টারনেটের মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভর্তি ফরম পূরণ করা যায়।

প্রশ্ন ॥ ৬ ॥ তথ্য কী? তথ্য সংরক্ষণের চারটি উপায় লিখ।

উত্তর : তথ্য হলো কাঁচামাল, উপাত্ত যখন বিশেষ প্রয়োজনে ব্যবহৃত হয় তখন তাই তথ্য।

     তথ্য সংরক্ষণের চারটি উপায় নিম্নরূপ :

i.    ইন্টারনেটে তথ্যটি অনুসন্ধানের পর প্রাপ্ত তথ্যটি আমরা খাতায় লিখে, ছবি তুলে সংরক্ষণ করতে পারি।

ii.   বর্তমানে তথ্য সংরক্ষণের জন্য বিভিন্ন তথ্য সংরক্ষণ প্রযুক্তি যেমন : পেনড্রাইভ, সিডি, ডিভিডি, মেমরিকার্ড ইত্যাদি ব্যবহার করি।

iii.   ইন্টারনেটে তথ্যটি অনুসন্ধানের পর ভিডিও রেকর্ড করে তথ্য সংরক্ষণ করতে পারি।

iv.   তথ্য সংরক্ষণের জন্য ভয়েস রেকর্ড এর মাধ্যমে তথ্য সংরক্ষণ করা যায়।

প্রশ্ন ॥ ৭ ॥ শিক্ষাক্ষেত্রে তথ্য প্রযুক্তির পাঁচটি ব্যবহার লিখ।

উত্তর : শিক্ষাক্ষেত্রে তথ্যপ্রযুক্তির পাঁচটি ব্যবহার নিচে উল্লেখ করা হলো :

১.   শ্রেণিকক্ষে শিখন পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়ন ও ফলাফল প্রকাশ ইত্যাদি কাজে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার হয়।

২.   তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে বিশ্বের নামি-দামি স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে সংরক্ষিত বই পড়া যায়।

৩.   ছবি আঁকতে, ডিজাইন করতে, তথ্য সংরক্ষণ করে রাখতে তথ্য প্রযুক্তি কাজে লাগে।

৪.   ভর্তি ফরম পূরণ হতে শুরু করে বিভিন্ন পাঠ্যপুস্তক পড়তে শিক্ষার্থীরা ইন্টারনেট প্রযুক্তি ব্যবহার করতে পারে।

৫.   শ্রেণির পাঠ্যবইগুলো তথ্যপ্রযুকিত ব্যবহার করে সংরক্ষণ করা যায়।

প্রশ্ন ॥ ৮ ॥ টেলিভিশন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারলে দেশে ‘ফ্লু’ ছড়িয়ে পড়বে। এখন তোমার করণীয় কী?

উত্তর : টেলিভিশন সংবাদের মাধ্যমে ফ্লু ছড়িয়ে পড়ার খবর পেলে আমি অন্যদের সাথে তথ্যটি বিনিময় করব এবং রোগটি ছড়িয়ে পড়া রোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেব।

ফ্লু ছড়িয়ে পড়া সংক্রান্ত তথ্য বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচারিত হলে মানুষের ফ্লুতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুকি হ্রাস পাবে। এই তথ্য প্রচারে আমিও অংশগ্রহণ করব। পাশাপাশি মুখে মাস্ক ব্যবহার করা, প্রতিষেধক হিসেবে টিকা নেওয়ার ব্যাপারে ডাক্তারের সাথে যোগাযোগের পরামর্শ দেব। মানুষ এই তথ্যগুলো ব্যবহার করে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে এবং রোগ থেকে মুক্ত থাকবে।

প্রশ্ন ॥ ৯ ॥ ইন্টারনেট কী? এখান থেকে প্রাপ্ত তথ্য কীভাবে সংগ্রহ করবে? কোনো স্থান সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ তথ্য পেতে তুমি কী করবে?

উত্তর : ইন্টারনেট হলো পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের কম্পিউটারগুলোর সংযুক্তকারী বিশাল নেটওয়ার্ক।

     ইন্টারনেট থেকে প্রাপ্ত তথ্য খাতায় লিখে, ছবি তুলে পেনড্রাইভ, সিডি, ডিভিডি, মেমোরি কার্ড ইত্যাদির মাধ্যমে সংরক্ষণ করব।

     কোনো স্থান সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ তথ্য পেতে হলে আমি ইন্টারনেটের সাহায্য নেব। এজন্য সার্চ ইঞ্জিন পিপীলিকার ঝবধৎপয ইধৎ-এ স্থানটির নাম লিখে ঝবধৎপয লেখাটিতে বা ঊহঃবৎ কবু তে  চাপ দেব। এরপর ঝবধৎপয ইঞ্জিনে ওয়েবসাইটের যে তালিকা আসবে সেখান থেকে সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইটটি বেছে নিয়ে স্থানটি সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ তথ্য সংগ্রহ করব।

সাধারণ প্রশ্ন :

প্রশ্ন ॥ ১০ ॥ ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ সহজ কেন?

উত্তর : ইন্টারনেট পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের অগণিত কম্পিউটারকে একই নেটওয়ার্কে যুক্ত করে বলে এর মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করা সহজ।

বিভিন্ন মাধ্যম থেকে তথ্য সংগ্রহ করা যায়। তবে ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করা অনেক সহজ। ইন্টারনেট হলো তথ্যের সুবিশাল ভা-ার। আমরা আমাদের প্রতিটি তথ্য কম্পিউটার বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেট থেকে খুব সহজে সংগ্রহ করতে পারি। একাজে আমাদেরকে সাহায্য করে সার্চ ইঞ্জিন নামক অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার, পিপীলিকা, গুগল, ইয়াহু ইত্যাদি।

প্রশ্ন ॥ ১১ ॥ বর্তমান পৃথিবীতে তথ্য যোগাযোগ এতো প্রয়োজনীয় কেন?

উত্তর : বর্তমানে পৃথিবী উন্নতির চরম শিখরে পৌঁছেছে। আমাদের বিভিন্ন কাজে যেমন বিদেশের সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য, যাতায়াত, কোনো জরুরি খবর, আবহাওয়ার পূর্বাভাস, সতর্কতা সংকেত মুহূর্তে এক দেশ থেকে অন্য দেশের বা একই দেশে বিভিন্ন স্থানে পাঠানো প্রয়োজন। এজন্য তথ্য যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রয়োজন। প্রচার মাধ্যম, ইন্টারনেট, টেলিফোন তথ্য যোগাযোগে বিশেষভাবে ভূমিকা রাখে। এর মাধ্যমে ঘরে বসে বিশ্বের ঘটনাবলি মুহূর্তে আমাদের জানা হয়ে যায়। যেখানে যাতায়াত অত্যন্ত কষ্টসাধ্য সেখানের তথ্যও আমরা ঘরে বসে মুহূর্তেই পেয়ে যাই। বর্তমান পৃথিবীতে তথ্য প্রযুক্তির বলে স্বল্প সময়ে, স্বল্প ব্যয়ে, স্বল্প শ্রমে সবই চোখের সামনে চলে আসছে।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.