আমাদের এই বাংলাদেশ- আমার বাংলা বই ৩য় শ্রেণী

কবি পরিচিতি
নাম : সৈয়দ শামসুল হক।
জন্ম : ২৭শে ডিসেম্বর ১৯৩৫, কুড়িগ্রাম।
উল্লেখযোগ্য শিশুবিষয়ক গ্রন্থ : সীমান্তের সিংহাসন, হডসনের বন্ধু।

কবিতাটি পড়ে জানতে পারব

  • দেশের প্রতি ভালোবাসার কথা
  • বাংলাদেশের পরিচয়
  • মায়ের ভাষা বাংলাকে ভালোবাসার কথা
  • কবিতাটির মূলভাব জেনে নিই

কবিতাটিতে বাংলাদেশের নানা পরিচয় উল্লেখ করা হয়েছে। বাংলাদেশ পূর্ব দিকে অবস্থিত বলে এদেশে অনেক আগে সূর্য ওঠে। যুদ্ধ করে মুক্তিযোদ্ধারা এ দেশকে স্বাধীন করেছেন। বাংলাদেশে রয়েছে অসংখ্য নদ-নদী। ধানের দেশ, গানের দেশ, কবির দেশ ইত্যাদি নানা নামে বাংলাদেশকে ডাকা হয়। মায়ের শেখানো মিষ্টি ভাষা বাংলাকে আমরা অনেক ভালোবাসি।

  • বানানগুলো লক্ষ করি

সূর্য, পূর্ব, স্বাধীন, মাতৃভাষা, ভালোবাসা, জন্মভূমি

অনুশীলনীর প্রশ্ন ও উত্তর

১. শব্দগুলো পাঠ থেকে খুঁজে বের করি। অর্থ বলি।
পূর্বদেশ, প্রিয়, আপন, কবি, বীর, স্বাধীন, জন।
উত্তর :
পূর্বদেশ = পূর্ব দিকে আছে এমন দেশ।
প্রিয় = পছন্দ করা হয় এমন।
আপন = নিজ।
কবি = যিনি কবিতা লেখেন।
বীর = বলবান ও সাহসী।
স্বাধীন = মুক্ত।
জন = সাধারণ মানুষ।

২. ঘরের ভিতরের শব্দগুলো খালি জায়গায় বসিয়ে বাক্য তৈরি করি।
আপন কবি পূর্বদেশে বীরের স্বাধীন
উত্তর :
ক) নজরুল আমাদের জাতীয় কবি ।
খ) পূর্বদেশে সূর্য ওঠে।
গ) আমরা স্বাধীন দেশের মানুষ।
ঘ) আমরা সবাই আপন কাজ করি।
ঙ) বাংলাদেশ অনেক বীরের জন্মভূমি।

৩. মুখে মুখে উত্তর বলি ও লিখি।
ক) সূর্য ওঠার পূর্বদেশ কোনটি?
উত্তর : সূর্য ওঠার পূর্বদেশ বাংলাদেশ।
খ) কোন দেশ নদীর দেশ?
উত্তর : বাংলাদেশ নদীর দেশ।
গ) কে মাতৃভাষা শেখালেন?
উত্তর : মা মাতৃভাষা শেখালেন।
ঘ) মায়ের ভাষাকে মিষ্টি বলা হয়েছে কেন?
উত্তর : মা আমাদের সবচেয়ে আপনজন। মায়ের কাছে শেখা ভাষাতেই আমরা আমাদের মনের ভাব প্রকাশ করি। মায়ের ভাষায় কথা বলতে ও শুনতে আমাদের সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে। তাই মায়ের ভাষাকে মিষ্টি বলা হয়েছে।

৪. যুক্তবর্ণগুলো চিনে নিই। যুক্তবর্ণ দিয়ে তৈরি করা নতুন শব্দ পড়ি।
সূর্য (য-রেফ) কার্য, ধৈর্য
পূর্ব (ব-রেফ) গর্ব, সর্ব
স্বাধীন (ব-ফলা) স্বর, স্বদেশ
মিষ্টি কষ্ট, চেষ্টা
জেনে রাখি।
ব্যঞ্জনবর্ণে র যুক্ত হলে তা রেফ চি‎হ্ন ( র্ ) হয়ে যায়। রেফ পরবর্তী বর্ণের মাথায় বসে।

৫. ডান দিক থেকে কবিতায় ব্যবহৃত ঠিক কথাটি নিয়ে খালি জায়গায় বসাই।
ক) আমার প্রিয় ……….। [স্বাধীন দেশ/ আপন দেশ]

খ) কবির দেশ ……….। [বীরের দেশ/ নদীর দেশ]

গ) সূর্য ওঠার …………। [বাংলাদেশ/ পূর্বদেশ]

ঘ) মনের ভাষা ……….। [বাংলা ভাষা/ জনের ভাষা]

ঙ) মা শেখালেন ………। [মাতৃভাষা/ ভালোবাসা]
উত্তর :
ক) আমার প্রিয় আপন দেশ ।
খ) কবির দেশ বীরের দেশ ।
গ) সূর্য ওঠার পূর্বদেশ ।
ঘ) মনের ভাষা জনের ভাষা ।
ঙ) মা শেখালেন মাতৃভাষা ।

৬. ঠিক উত্তরটি বাছাই করে বলি ও লিখি।
ক) বাংলাদেশ কত নদীর দেশ?
১. এগারো শত ২. বারো শত
৩. তেরো শত ৪. চৌদ্দ শত

খ) জনের ভাষা বলতে কবি কোনটিকে বুঝিয়েছেন?
১. মিষ্টি বাংলা ভাষা
২. মায়ের মুখের ভাষা
৩. সাধারণ মানুষের ভাষা
৪. মানুষের মনের ভাষা

গ) বাংলা কাদের মাতৃভাষা?
১. সকল দেশবাসীর ২. সকলের মায়ের
৩. সকল কবির ৪. সকল বাঙালির

উত্তর : ক) ৩. তেরো শত; খ) ৩. সাধারণ মানুষের ভাষা; গ) ৪. সকল বাঙালির।

৭. কবিতাটি সবাই মিলে একসঙ্গে জোরে জোরে পড়ি।
উত্তর : বন্ধুরা একসাথে চেষ্টা কর।

৮. কবিতাটি না দেখে লিখি।
উত্তর : পাঠ্য বই থেকে প্রথমে কবির নামসহ কবিতাটি মুখস্থ করে নাও। এরপর না দেখে খাতায় লেখ।

৯. বাংলাদেশ সম্পর্কে দুটি বাক্য লিখি।
উত্তর : বাংলাদেশ সম্পর্কে দুটি বাক্য Ñ
১) বাংলাদেশ আমাদের প্রিয় জন্মভূমি।
২) বাংলাদেশ একটি স্বাধীন দেশ।

অতিরিক্ত প্রশ্ন ও উত্তর

  • সঠিক উত্তরটি লেখ।

১. ‘পূর্বদেশ’ বলতে কবি কী বুঝিয়েছেন?
ক প্রাচীন দেশ খ পূর্ব দিকের দেশ
গ স্বাধীন দেশ ঘ নতুন দেশ

২. কবি কোনটিকে মিষ্টি বলেছেন?
ক মায়ের ভাষাকে খ সূর্যের আলোকে
গ নদীর পানিকে গ কবির কবিতাকে

  • নিচের শব্দগুলো দিয়ে বাক্য রচনা কর।

প্রিয়, দেশ, গান।
উত্তর : শব্দ বাক্য
প্রিয় = কাঁঠাল আমার প্রিয় ফল।
দেশ = দেশকে সবাই ভালোবাসব।
গান = বাংলাদেশ গানের দেশ।

  • শূন্যস্থান পূরণ কর।

ক) তেরো শত _____ দেশ।
খ) এই ভাষাতে ______।
গ) আমার দেশ ______ দেশ।
উত্তর : ক) নদীর; খ) ভালোবাসা; গ) স্বাধীন।

  • ডান পাশের বাক্যাংশের সাথে বাম পাশের বাক্যাংশের মিল কর।

মাতৃভাষা শেখালেন — কবি
গানের দেশ বাংলা — ভাষা
মনের ভাষা তেরো — শত
নদী আছে — মা
বাংলাদেশ

উত্তর : মাতৃভাষা শেখালেন – মা।
গানের দেশ – বাংলাদেশ।
মনের ভাষা – বাংলা ভাষা।
নদী আছে – তেরো শত।

  • নিচের শব্দগুলোর বানান শুদ্ধ করে লেখ।

সুর্য্য, স্বাধিন, পুর্ব, মাতৃভাসা, ভালোবাশা।
উত্তর : ভুল বানান শুদ্ধ বানান
সুর্য্য = সূর্য
স্বাধিন = স্বাধীন
পুর্ব = পূর্ব
মাতৃভাসা = মাতৃভাষা
ভালোবাশা = ভালোবাসা

  • নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ।

ক) বাংলাদেশে কতগুলো নদী আছে?
উত্তর : বাংলাদেশে তেরো শত নদী আছে।
খ) আমরা বাংলা ভাষাকে ভালোবাসি কেন?
উত্তর : বাংলা আমাদের মায়ের ভাষা। এ ভাষাতেই আমরা মনের ভাব প্রকাশ করি। তাই বাংলা ভাষাকে আমরা ভালোবাসি।

  • বুঝিয়ে লেখ।

ধানের দেশ গানের দেশ
তেরোশত নদীর দেশ
বাংলাদেশ।

উত্তর : আলোচ্য বাক্যগুলো সৈয়দ শামসুল হক রচিত ‘আমাদের এই বাংলাদেশ’ কবিতা থেকে নেওয়া হয়েছে।
এখানে বাংলাদেশের প্রকৃতি ও সংস্কৃতির সৌন্দর্যের কথা বলা হয়েছে।
আমাদের বাংলাদেশের প্রকৃতি খুবই সুন্দর। এখানে মাঠে মাঠে ধানের ক্ষেত এবং অসংখ্য নদনদী রয়েছে। বাউল কবিরা এ দেশকে গানের দেশে পরিণত করেছে।

প্রাথমিক সমাপনী নমুনা প্রশ্ন ও উত্তর

নিচের কবিতাংশটি পড়ে ১, ২, ৩ ও ৪ নম্বর প্রশ্নের উত্তর লেখ।
আমার প্রিয় আপন দেশ
বাংলাদেশ।
আমাদের এই বাংলাদেশ।
কবির দেশ বীরের দেশ
আমার দেশ স্বাধীন দেশ
বাংলাদেশ।
ধানের দেশ গানের দেশ
তেরো শত নদীর দেশ
বাংলাদেশ।
আমার ভাষা বাংলা ভাষা
মা শেখালেন মাতৃভাষা
মিষ্টি বেশ।
মনের ভাষা জনের ভাষা
এই ভাষাতে ভালোবাসা
মায়ের দেশ।

১. সঠিক উত্তরটি উত্তরপত্রে লেখ।
১) বাংলা ভাষা আমরা প্রথম কার কাছে শিখি?
(ক) বাবার কাছে (খ) আত্মীয়-স্বজনের কাছে
(গ) মায়ের কাছে (ঘ) প্রতিবেশীর কাছে

২) বাংলাদেশ কত নদীর দেশ?
(ক) তেরো (খ) তেরো শত
(গ) তেরো হাজার (ঘ) তেরো লক্ষ

৩) আমরা কেমন জাতি?
(ক) স্বাধীন জাতি (খ) পরাধীন জাতি
(গ) ভীতু জাতি (ঘ) দুর্বল জাতি

৪) কোনটিকে জনের ভাষা বলা হয়েছে?
(ক) বাংলাকে (খ) উর্দুকে
(গ) ইংরেজিকে (ঘ) হিন্দিকে

৫) কবিতাংশ পড়ে বলা যায় —
(ক) আমাদের দেশ অসুন্দর
(খ) দেশকে নিয়ে আমরা ভাবব না
(গ) দেশকে আমরা ভালোবাসব
(ঘ) দেশকে আমরা ভালোবাসব না
উত্তর : ১) (গ) মায়ের কাছে; ২) (খ) তেরো শত; ৩) (ক) স্বাধীন জাতি; ৪) (ক) বাংলাকে; ৫) (গ) দেশকে আমরা ভালোবাসব।

২. নিচের শব্দগুলোর অর্থ লেখ।
আপন, বীর, কবি, জন, মাতৃভাষা।
উত্তর :
শব্দ অর্থ
আপন = নিজ।
বীর = বলবান ও সাহসী।
কবি = যিনি কবিতা লেখেন।
জন = সাধারণ মানুষ।
মাতৃভাষা = মায়ের মুখ থেকে শিশু যে ভাষা শেখে।

৩. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ।
ক) কোন দেশ বীরের দেশ?
উত্তর : বাংলাদেশ বীরের দেশ।
খ) কোনটিকে মনের ভাষা বলা হয়েছে?
উত্তর : আমাদের মাতৃভাষা বাংলাকে মনের ভাষা বলা হয়েছে।
গ) মায়ের ভাষাকে মিষ্টি বলা হয়েছে কেন?
উত্তর : মা আমাদের সবচেয়ে আপনজন। মায়ের কাছে শেখা ভাষাতেই আমরা আমাদের মনের ভাব প্রকাশ করি। মায়ের ভাষায় কথা বলতে ও শুনতে আমাদের সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে। তাই মায়ের ভাষাকে মিষ্টি বলা হয়েছে।

৪. কবিতাংশটির মূলভাব লেখ।
উত্তর : বাংলাদেশের সাহসী মানুষেরা লড়াই করে এ দেশকে স্বাধীন করেছে। ধানের দেশ, গানের দেশ, নদীর দেশ- এরকম অনেক নামে এদেশকে ডাকা হয়। মায়ের মুখ থেকে আমরা শিখেছি মাতৃভাষা বাংলা। মিষ্টি এ ভাষার মাধ্যমে আমরা আমাদের সব ভালোলাগা প্রকাশ করি।

নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৫, ৬ ও ৭ নম্বর প্রশ্নের উত্তর লেখ।
সুজলা-সুফলা, শস্য-শ্যামলা আমাদের এই বাংলাদেশ। নদী, মাঠ, পাহাড়, বন, সমুদ্র, প্রান্তর সবকিছু মিলিয়ে এদেশের সৌন্দর্য অপরূপ। যেদিকে চোখ যায় কেবলই সবুজের সমারোহ। বাংলাদেশের উত্তর ও পূর্ব দিকে রয়েছে পাহাড়ের হাতছানি। পাহাড়ের বুক চিরে উঠে যাওয়া আঁকাবাঁকা পথ, পাহাড়ি নদী বা ঝরনা, পাহাড়ের গা জুড়ে থাকা চা-বাগান ইত্যাদি সৌন্দর্যে আমরা পুলকিত হই। আবার দেশের দক্ষিণে রয়েছে বঙ্গোপসাগর। তার কোল ঘেঁষে মোহনীয় সুন্দরবন। পৃথিবীখ্যাত রয়েল বেঙ্গল টাইগারের আস্তানা এখানেই। এদেশে রয়েছে অসংখ্য নদ-নদী। নদ-নদীগুলোর রূপ অতুলনীয়। নদীর রুপালি জলের স্রোত আর তাতে ভেসে চলা পালতোলা নৌকা দেখলে মুগ্ধ হতে হয়। ছয়টি ঋতুর পালাবদল এদেশের সৌন্দর্যের মূল উৎস। ভিন্ন ভিন্ন ঋতুতে প্রকৃতি সাজে ভিন্ন ভিন্ন রূপে। সত্যিই রূপের দিক থেকে বাংলাদেশ সকল দেশের রানি।

৫. সঠিক উত্তরটি উত্তরপত্রে লেখ।
১) অনুচ্ছেদে প্রকাশিত হয়েছে-
(ক) বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কথা
(খ) বাংলাদেশের সম্পদের কথা
(গ) বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের কথা
(ঘ) বাংলাদেশের জনজীবনের বৈচিত্র্যের কথা

২) সুন্দরবন বাংলাদেশের কোথায় অবস্থিত?
(ক) পূর্বাঞ্চলে (খ) পশ্চিমাঞ্চলে
(গ) উত্তরাঞ্চলে (ঘ) দক্ষিণাঞ্চলে

৩) ‘অতুলনীয়’ শব্দটির বিপরীত কোনটি?
(ক) তুলনাহীন (খ) তুলনীয়
(গ) অতি অল্প (ঘ) অত্যধিক

৪) রয়েল বেঙ্গল টাইগারের আস্তানা কোথায়?
(ক) পাহাড়ে (খ) বনে
(গ) সমুদ্রে (ঘ) নদীতে

৫) ঋতুর পালাবদলের ফলে বাংলাদেশের
(ক) সৌন্দর্য কমেছে
(খ) সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেয়েছে
(গ) সুনাম নষ্ট হয়েছে
(ঘ) রূপ সর্বদা একই রকম হয়
উত্তর : ১) (ক) বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কথা; ২) (ঘ) দক্ষিণাঞ্চলে; ৩) (খ) তুলনীয়; ৪) (খ) বনে; ৫) (খ) সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেয়েছে।

৬. নিচে কয়েকটি শব্দ এবং শব্দার্থ দেওয়া হলো। নিচের বাক্যগুলোর শূন্যস্থানের উপযুক্ত শব্দটি উত্তরপত্রে লেখ।
শব্দ শব্দার্থ
আস্তানা = বাসস্থান
প্রান্তর = জনবসতিহীন বিস্তৃত ভূম
পুলকিত = আনন্দিত
নয়ন = চোখ
মোহনীয় = মুগ্ধ করে এমন
সর্পিল = চলন্ত সাপের মতো আঁকাবাঁকা

ক) ঝরনাটি দেখে আমরা খুব ______ হলাম।
খ) পুলিশ চোরের গোপন ______ খুঁজে পেয়েছে।
গ) নদীটি দেখে ______ জুড়িয়ে গেল।
ঘ) রাস্তাটি পাহাড়ের গা বেয়ে _______ ভঙ্গিতে নেমে গেছে।
ঙ) সমুদ্রের _______ সৌন্দর্য সবাইকে কাছে টানে।
উত্তর : ক) পুলকিত; খ) আস্তানা; গ) নয়ন; ঘ) সর্পিল; ঙ) মোহনীয়।

৭. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ।
ক) বাংলাদেশের উত্তর ও দক্ষিণ অঞ্চলের সৌন্দর্যের তুলনা কর।
উত্তর : বাংলাদেশের উত্তর দিকে রয়েছে সবুজ পাহাড়ের হাতছানি। পাহাড়গুলোর গা বেয়ে উঠে গেছে সর্পিল পথ। কোথাও চোখে পড়ে পাহাড়ি নদী, কোথাও ঝরনা, কোথাও বা চা বাগান। অন্যদিকে দেশের দক্ষিণ দিকে রয়েছে সুবিশাল বঙ্গোপসাগর। তার কোল ঘেঁষে অপূর্ব সুন্দরবন। উত্তর কিংবা দক্ষিণ যে দিকেই যাওয়া যাক না কেন, সৌন্দর্যের কমতি নেই কোনো দিকেই।

খ) বাংলাদেশের নদ-নদীর রূপের কথা লেখ।
উত্তর : বাংলাদেশের বুক চিরে বয়ে চলেছে অসংখ্য নদ-নদী। নদীগুলো অসামান্য রূপের অধিকারী। নদীর বুকের রুপালি স্রোত আর পালতোলা নৌকার সৌন্দর্য নয়ন জুড়িয়ে দেয়।

গ) বাংলাদেশকে সকল দেশের রানি বলা হয়েছে কেন?
উত্তর : বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য তুলনাহীন। এদেশে আছে নদী, পাহাড়, বন, সমুদ্র – এককথায় প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের সকল উপাদান। ষড়ঋতুর পালাবদল এদেশের সৌন্দর্যকে দিয়েছে বিশেষ মাত্রা। এত রূপের সমাহার অন্য কোনো দেশে একসাথে খুঁজে পাওয়া যায় না। তাই বাংলাদেশকে সকল দেশের রানি বলা হয়েছে।

৮. নিচের যুক্তবর্ণগুলো কোন কোন বর্ণ নিয়ে গঠিত ভেঙে দেখাও এবং প্রতিটি যুক্তবর্ণ দিয়ে একটি করে শব্দ গঠন করে বাক্যে প্রয়োগ দেখাও।
প্র, স্ব, তৃ, ষ্ট।
উত্তর :
ঙ্গ = ঙ + গ – ভঙ্গ = বৃষ্টি আসায় খেলা ভঙ্গ হলো।
প্র = প + র-ফলা ( ্র ) = দেশপ্রেম = দেশপ্রেম ইমানের অঙ্গ।
স্ব = স + ব-ফলা ( ^ ) = স্বাধীন = আমরা স্বাধীন জাতি।
তৃ = ত + ঋ-কার ( ৃ ) = মাতৃভূমি = বাংলাদেশ আমাদের মাতৃভূমি।
ষ্ট = ষ + ট = কষ্ট = হেঁটে আসতে কষ্ট হয়ে গেছে।

৯. সঠিক স্থানে বিরামচিহ্ন বসিয়ে অনুচ্ছেদটি আবার লেখ।
(কবিতার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়)

১০. এককথায় প্রকাশ কর।
ক) পূর্ব দিকে আছে এমন দেশ।
খ) যিনি কবিতা লেখেন।
গ) বলবান ও সাহসী যিনি।
ঘ) মায়ের কাছে শেখা ভাষা।
ঙ) পছন্দ করা হয় এমন।
উত্তর : ক) পূর্বদেশ; খ) কবি; গ) বীর; ঘ) মাতৃভাষা; ঙ) প্রিয়।

১১. নিচের শব্দগুলোর বিপরীত শব্দ লেখ।
পূর্ব, আপন, প্রিয়, বীর, স্বাধীন।
উত্তর : শব্দ বিপরীত শব্দ
পূর্ব = পশ্চিম
আপন = পর
প্রিয় = অপ্রিয়
বীর = ভিতু
স্বাধীন = পরাধীন

১২. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।

মিষ্টি বেশ।
মায়ের দেশ।
মা শেখালেন মাতৃভাষা
আমার ভাষা বাংলা ভাষা
মনের ভাষা জনের ভাষা
এই ভাষাতে ভালোবাসা

ক) কবিতার লাইনগুলো সাজিয়ে লেখ।
খ) কবিতাংশটুকু কোন কবিতার অংশ?
গ) কবিতাটির কবি কে?
ঘ) মা আমাদের কী শেখালেন?
উত্তর :
ক) কবিতার লাইনগুলো নিচে সাজিয়ে লেখা হলোÑ
আমার ভাষা বাংলা ভাষা
মা শেখালেন মাতৃভাষা
মিষ্টি বেশ।
মনের ভাষা জনের ভাষা
এই ভাষাতে ভালোবাসা
মায়ের দেশ।
খ) কবিতাংশটি ‘আমাদের এই বাংলাদেশ’ কবিতার অংশ।
গ) কবিতাটির কবি সৈয়দ শামসুল হক।
ঘ) মা আমাদের মাতৃভাষা বাংলা শেখালেন।

Similar Posts

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.